তাহলে কি ১৯৮৮ সালের বন্যাও ছাড়িয়ে যেতে পারে ২০১৭ সালের বন্যা?

শহর ডুবে যেতে পারে

’৮৮ সালের বন্যা বাংলাদেশে সংঘটিত ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগগুলোর একটি। এই বন্যা এতো ভয়াবহ ছিল যে বিশ্বব্যাপী গনমাদ্ধমগুলোর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়। দেশের প্রায় ৬০% এলাকা ডুবে যায় এবং প্রায় ৮২,০০০ বর্গকিমি এলাকা সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। স্থায়িত্বকাল ছিল ১৫-২০ দিন। ২০১৭ সালের বন্যা ১৯৮৮ সালের বন্যার সকল রেকর্ড ভাঙছে প্রতিদিন। তাই ধারণা করা হচ্ছে ’৮৮ এর চেয়েও হয়তো ভয়ঙ্কর হবে এই বন্যা।

ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসনে চৌধুরী মায়া সোমবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, “এখন পর্যন্ত দেশের ২০টি জেলার ৫৬টি উপজেলা বন্যা কবলিত৷ বন্যায় সারাদেশে মারা গেছেন ২০ জন,  ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রায় ৬ লাখ মানুষ৷ এছাড়াও উত্তরাঞ্চলের বন্যার পানি মধ্যাঞ্চল দিয়ে প্রবাহতি হয়ে সাগরে নেমে যাবে৷ ফলে ঢাকার নিম্নাঞ্চলসহ আরও ৯টি জেলায় বন্যার আশঙ্কা আছে৷” তিনি আরও জানিয়েছেন, “১৯৮৮ সালরে চেয়ে বড় বন্যা হলেও মোকাবেলার প্রস্তুতি আছে সরকারের৷”

যমুনার পানি বেড়েই চলেছে
যমুনার পানি বেড়েই চলেছে

এদিকে যমুনার পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে দিন দিন। যার ফলে সিরাজগঞ্জের নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়ে যাচ্ছে। দেশের উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বন্যাকবলিত জেলাগুলোতে পানি কমছে। বার্তা সংস্থা ইউএনবি জানায়, আজ সকালে যমুনার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সিরাজগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। সিরাজগঞ্জ  পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ হাসান ইমাম বলেন, “আজ সকাল ছয়টায় দেখা যায় বিপদসীমার ১৪৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে যমুনার পানি”। তিনি আরও জানান ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি বেড়েছে ১৯ সেন্টিমিটার। যার ফলে কাজীপুর, চৌহালি, শাহাজাদপুর এবং বেলকুচি উপজেলার নিচু এলাকা বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। ব্রহ্মপুত্রের পানি ১০ সেন্টিমিটার, ধরলার পানি ১৮ সেন্টিমিটার এবং তিস্তা ও দুধকুমার নদীর পানি ১১ সেন্টিমিটার করে কমলেও কুড়িগ্রামে বন্যাক্রান্ত মানুষের দুর্দশা কমেনি। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জায়েদুল হক বলেন, বন্যায় সুনামগঞ্জ জেলার কৃষকদের ৭,৭৭১ হেক্টর আমন ক্ষেত এবং ১,০০৬ হেক্টর বীজতলা নষ্ট হয়ে গেছে। গত তিন দিনে বন্যায় দেশের বিভিন্ন জেলায় অন্তত ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

হয়তো এসব কারনেই বন্যা হতে পারে

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, এবারের বন্যার কারণ বাংলাদেশের উজান থেকে আসা পানির ঢল এবং অতিরিক্তি বৃষ্টি৷ ত্রাণমন্ত্রী বলেছেন, “উজানের দেশ চীন, ভারত, নেপাল ও ভুটানে এ বছর স্মরণকালের মধ্যে মারাত্মক বন্যা হয়েছে৷ এছাড়া উজনের  দেশগুলোতে বন্যা হলে ভাটির দেশ হিসাবে বাংলাদেশের ওপর    তার প্রভাব তো পড়বেই৷”

নদী ভাঙ্গন
নদী ভাঙ্গন source: www.dw.com

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, “আগামী ২৪ থেকে ৩৬ ঘণ্টার ভিতরে ব্রহ্মপুত্র-যমুনার ভারত অংশে সর্বোচ্চ ২৫ সেমি পানি বৃদ্ধি পেলেও, বাংলাদেশ অংশে আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ৪৫ সেমি পযন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে৷”

দেশের বন্যা কবলিত এলাকাগুলোর সড়ক পানিতে ডুবে গেছে তাই সড়ক যোগাযোগ বন্ধ আছে। কুড়িগ্রামে রেলসেতু পানিতে ডুবেছে। যেসব এলাকায় শহর রক্ষা বাঁধ আছে সেগুলোতে পানি না ঢুকলেও ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। সাধারণত বন্যার মৌসুমে বাংলাদেশের ভূখণ্ডের ১৮ ভাগ তলিয়ে যায়। ব্যাপক আকারে বন্যা হলে তা দাঁড়ায় ৫৫ ভাগে কিন্তু আশঙ্কা করা হচ্ছে এবার বন্যায় প্রায় ৭০ ভাগ ডুবে যাবে।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এবং নদী ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. আইনুন নিশাত ডয়চে ভেলেকে বলেন, “পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের গ্লোবাল ফ্লাড এওয়ারনেস সিস্টেম-এর (গ্লোফাস) তথ্য বিশ্লেষণ করলে এটা বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়ানক বন্যার কবলে পড়তে যাচ্ছে৷ ১৫ তারিখের পরে ব্রহ্মপুত্র নদীর পানি অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে৷ এই নদী দিয়ে এখন ২০ লাখ কিউসেক পানি প্রবাহিত হচ্ছে৷ আরো ৮-১০ দিন এই প্রবাহ থাকবে৷ কারণ পানি আসছে অসম-অরুণাচল থেকে৷ গঙ্গা বিপদসীমার নীচে থাকলেও নেপালে বৃষ্টির কারণে সেটাও বাড়ছে৷ গঙ্গা, যমুনা ও মেঘনার প্রবাহ যদি একসঙ্গে হয় তাহলে দেশের মধ্যাঞ্চলের জন্যও মহাবিপদ, যা ১৯৮৮ সালে হয়েছিল৷ এর সঙ্গে ২১ আগস্ট অমাবস্যা৷ আর যদি কোনোভাবে সাইক্লোন যুক্ত হয়, তাহলে আসলেই মহাবিপদ আছে সামনে৷”

ত্রাণমন্ত্রী বন্যা প্রতিরক্ষার বিষয়ে জানিয়েছেন, “এরইমধ্যে দশ হাজার মেট্রিক টন চাল, তিন কোটি ১০ লাখ টাকা এবং ৬০ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে”। তিনি আরো বলেন, “যত বড় বন্যাই হোক মোকাবেলার প্রস্তুতি আমাদের আছে৷”

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি’র ২৯তম বৈঠকে বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে বিভিন্ন সুপারিশ করা হয়েছে। সুপারিশগুলো হচ্ছে-

১। এডিপিভুক্ত প্রকল্পের জলাবদ্ধতা দূরীকরণের লক্ষ্যে বর্ষা আসার আগে খাল পুন:খনন করা।

২। সীমান্ত নদী সংরক্ষণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখা।

৩। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন ড্রেজার পরিদপ্তরের চলমান ড্রেজিং কার্যক্রম তদারকি।

৪। ওয়ারপোর (ওয়াটার রিসোর্সেস প্লানিং আর্গানিজেশন) জনবল সমস্যা সমাধানে প্রত্যেক উপজেলায় জনবল নিয়োগের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

৫। জাতীয় পানি নীতির অনুকরণে হাওর সমূহের বাধ ব্যবস্থাপনা, তদারকির জন্য গ্রাম পর্যায়ে সমিতি, ইউনিয়ন পর্যায়ে এসোসিয়েশন এবং উপজেলা পর্যায়ে ফেডারেশন গঠনপূর্বক এর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব ফেডারেশনের উপর দেয়ার সুপারিশ করা হয়।

মানুষের দুর্ভোগ
মানুষের দুর্ভোগ Source: BBC

টানা বৃষ্টি ভয়ঙ্কর আকারের বন্যা নিয়ে আসে। বন্যার কারণে দেশের নিম্ন এলাকার মানুষরা চরম দুর্ভোগের মাঝ দিয়ে জীবন অতিবাহিত করে। ২০১৭ সালের বন্যা বাংলাদেশের সকল এলাকার মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে।  

Source:

www.dailystar.com
www.dailyittefak.com
www.dw.com
www.bbc.com
wikipedia.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *