মাথা ব্যথা দূর করার পদ্ধতিগুলো দেখে নিন

মাথা ব্যথা

অন্যান্য জায়গাতে ব্যথা হলে যে কষ্ট লাগে- মাথা ব্যথা হলে সব চেয়ে বেশি খারাপ লাগে।মাঝে মাঝে প্রচণ্ড মাথা ব্যথায় পৃথিবী অন্ধকার লাগে।

শরীরের অন্যান্য অঙ্গ গুলোর ভেতর মাথা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। মাথা ছাড়া শরীর কি কাজ করতে পারে?

এইসময় গুলোতে হাতের কাছের কিছু উপকরণ ও পদ্ধতি দিয়ে ব্যথা কমানো সম্ভব। চলুন জেনে নেই তাৎক্ষণিক ভাবে মাথা ব্যথা দূর করার পদ্ধতি গুলো।

মাথা ব্যথা দূর করে আকুপ্রেশার

মাথা ব্যথা
এই পদ্ধতিটি বিজ্ঞানসম্মত এবং প্রমাণিত। চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

বহুবছর ধরে মাথা ব্যথা দূর করতে অনেকেই আকুপ্রেশার পদ্ধতি ব্যবহার করে আসছেন। এই ছোট্ট ঘরোয়া পদ্ধতিটি আপনাকে এক মিনিটের মধ্যে মাথা ব্যথা সারাতে সাহায্য করবে। বাম হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি এবং তর্জনির মাঝখানের অংশে অন্য হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি ও তর্জনি দিয়ে চাপ দিন এবং ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ম্যাসাজ করুন। একই ভাবে ডান হাতেও করুন। বিশেষজ্ঞরা বলেন, আশা করা যায় এতে এক মিনিটেই মাথা ব্যথা সারবে।

পানি পান করুন

মাথা ব্যথা
পানি সকল রোগের ওষুধ।

একচুমুক পানি পানও আপনাকে এক মিনিটের মধ্যে মাথা ব্যথা সারাতে কাজে দেবে।

যখন আমাদের শরীর আর্দ্র হতে থাকে তখন ব্যথা ধীরে ধীরে কমে।

লবঙ্গ

মাথা ব্যথা
মাথা ব্যথা দূর করা ছাড়াও লবঙ্গ আরও অনেক উপকার করে।

কিছু লবঙ্গ তাওয়ার মধ্যে গরম করে নিন।

গরম লবঙ্গ একটি রুমালের মধ্যে নিন।

এক মিনিট এর ঘ্রাণ নিন এবং দেখুন মাথা ব্যথা চলে গেছে।

লবণযুক্ত আপেল

মাথা ব্যথা
এই কারণেই হয়ত বলা হয় প্রতিদিন একটি করে আপেল খেলে ডাক্তারের কাছে জেতে হবে না।

ব্যথা যদি বেশি হয় তবে এই ঘরোয়া পদ্ধতিটি চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

এক টুকরো আপেল চিবুতে পারেন তবে এতে একটু লবণ ছিটিয়ে নেবেন।

এটা দ্রুত ব্যথা মুক্ত করতে সাহায্য করবে।

আদা চিবুতে পারেন

মাথা ব্যথা
আদা খেলে ঠাণ্ডাও লাগতে পারেনা।

এক পিস টাটকা আদা চিবুতে পারেন এতে ৬০ সেকেন্ডে মাথা ব্যথা দূর হবে।

আদা একটু বাজে গন্ধের হলেও পদ্ধতিটি কাজের।

আদার ঝাঁজ এবং ঝাল মাথায় গিয়ে লাগে তখন মাথা ব্যথা কমে আসতে শুরু করে।

গান শোনা

মাথা ব্যথা
গান শুনলে মাথার নিওরন গুলো আরাম পায়।

মন ভালো করার পাশাপাশি মাথা ব্যথা উপশমে সব চাইতে ভালো কাজ হচ্ছে গান শোনা। ‘জার্নাল অফ পেইন’ গবেষণাপত্রে প্রকাশ হয় গান শোনা প্রায় ১৭% ব্যথা কমিয়ে দিতে সহায়তা করে। কারণ গান মনোযোগ দিয়ে শোনার সময় আমাদের লক্ষ্য মাথা ব্যথা থেকে সরে যায় যা আমাদের মাথা ব্যথার কথা অনেক সময় ভুলিয়ে দেয়। এতে করেই সেরে উঠে মাথা ব্যথা।

মিষ্টিকুমড়োর বিচি খান

মাথা ব্যথা
কুমড়ার বিচি।

মিষ্টি কুমড়োর বিচি ভেজে খেলে এই ব্যথার সমস্যা থেকে দুত মুক্তি পাওয়া সম্ভব। কারণ মিষ্টি কুমড়োর বিচিতে হয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম সালফেট যা মাথা ব্যথা উপশমে কাজ করে থাকে।

কাঠবাদাম খাওয়ার অভ্যাস রাখুন

মাথা ব্যথা
কাঠবাদাম খেলে স্মৃতি শক্তিও বৃদ্ধি পায়।

অনেক সময় আবহাওয়া, ধুলোবালির কারণে মাথা ব্যথা শুরু হয়ে যায়, আবার অনেক সময় মানসিক চাপের কারণেও মাথা ব্যথা শুরু হয়। এই সকল ধরনের ব্যথা কমানোর জন্য একমুঠো বা দুইমুঠো কাঠবাদাম চিবিয়ে খান। কাঠবাদামে রয়েছে ‘স্যালিসিন’ যা ব্যথা উপশমে কাজ করে রবং দ্রুত ব্যথা নিরাময় করে।

মনিটরে তাকিয়ে থাকা কমাতে হবে

মনিটরে একদিকে তাকিয়ে থাকলে একসময় চোখ, মাথা একসাথে কষ্ট দেয়। সুতরাং ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যাবহারের ক্ষেত্রে সময় মেনে চলতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *