স্বপ্ন মাঝে মাঝে অদ্ভুত ধাঁধায় ফেলে দেয় !

স্বপ্ন

প্রায় আমরা স্বপ্ন দেখি। কিছু স্বপ্ন হয়ে থাকে আমাদের নতুন দিনে বাঁচার শক্তি। আর কিছু স্বপ্ন আমাদের জীবনটাই থমকে দেয় অনেক সময়ের জন্য। এই স্বপ্ন গুলো আমরা কেন দেখি? যার সাথে বাস্তবতার মিল কোন নেই।

কিছু মানুষ আছে যারা স্বপ্ন অনুভব করতে পারে, তাদের কাছে ওই সময়টা সত্যি মনে হয়, স্বপ্নে পাওয়া ব্যথা গুলো বেশ কিছুক্ষণ মনের ভেতর গেথে যায়।

সুন্দর সময় গুলো নষ্ট হয়ে যায়। আজ কিছু এমন স্বপ্ন নিয়ে বলবো যেগুলো দিয়ে প্রায় মানুষই দেখে থাকে কিন্তু অর্থ খুঁজে পায়না।

স্বপ্ন যখন ঝড়ের রাত

স্বপ্ন
স্বপ্নে ঝড়ের মধ্যে বিপদে পড়া।

আপনি হয়তো দেখছেন অনেক ঝড়, বজ্রপাত, বৃষ্টি হচ্ছে। সেখান থেকে পালানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছেন কিন্তু পারছেন না।

উত্তর- চলমান জীবনের চাপ, উৎকণ্ঠা এসবেরই প্রতিচ্ছবি হলো এ ধরণের দুঃস্বপ্ন। যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঘটনা আপনার জীবনে ঘটে যাওয়া যেকোনো অনির্ণেয় জটিলতাগুলোয় ঝড়ের প্রতিরূপ হয়ে স্বপ্নে এসে ভীড় জমায়। এক্ষেত্রে আপনার জটিলতার অবসানের সাথে সাথেই দুঃস্বপ্নের ইতি ঘটতে পারে। এমন টা না হলে অবশ্যই মনোরোগ বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হতে ভুলবেন না। কাউন্সেলিং এক্ষেত্রে খুবই জরুরী।

দুর্ঘটনা

স্বপ্নে দেখছেন কোন ভয়াবহ দুর্ঘটনায় পরেছেন। কোন ভাবে উদ্ধার হতে পারছেন না। অনেক চেষ্টার পরেও না।

উত্তর- এই স্বপ্নের মানে ব্যক্তিগত জীবনে আপনি নিরাপত্তাহীনতা ও আত্মসম্মানের অভাবে ভুগছেন।

পরীক্ষায় উত্তর দিতে না পারা

ছাত্রজীবনে এই ধরণের স্বপ্ন খুব সাধারণ। পরীক্ষায় ফেল করা বা পরীক্ষার হলে কোনও প্রশ্নের উত্তর দিতে না পারা এই জাতীয় স্বপ্নের উদাহরণ।

উত্তর- বাহ্যিক চাপ বা নিজের কাছে নিজের প্রত্যাশা যখন অত্যধিক হয়ে যায় তখনই এই জাতীয় স্বপ্নের দেখা মেলে।

ভালবাসার মানুষ আপনাকে ছেড়ে যাচ্ছে

এ ধরণের স্বপ্নে সাধারণত দেখা যায় আপনার ভালবাসার মানুষ আপনার সাথে প্রতারণা করছে অথবা আপনাকে ছেড়ে চলে যাচ্ছে।

উত্তর- যখন আপনি ভালবাসার জগতে নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন তখন এ জাতীয় স্বপ্ন দেখতে পারবেন। নিজেকে নিজের সঙ্গীর উপযুক্ত বলে মনে হচ্ছে না বলে মনে হয় বলে অনেকে এই স্বপ্ন দেখতে পারে।

স্বপ্নে নিজেকে নগ্ন দেখা

আপনি স্বপ্নে দেখছেন আপনার শরীরে কোন পোশাক নেই কিন্তু আপনি দিব্যি রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

স্বপ্নে আপনি এতোটা খেয়াল করেন না কিন্তু ঘুম থেকে উঠে চিন্তা করলে খুব খারাপ লাগে যে কেন আপনি ওভাবে রাস্তায় হাঁটা চলা করলেন।

উত্তর- যখন সমাজে নিজের অবস্থান বা লোকে আপনাকে নিয়ে কী ভাবছে, এই বিষয়ে আপনি অতি সচেতন তখনই এই ধরনের স্বপ্ন দেখার প্রবণতা বাড়ে।

দাঁত পড়ে যাওয়া

স্বপ্ন
স্বপ্নে দাঁত পরতে দেখা অনেক ভয়াবহ একটা বিষয়।

স্বপ্নে দেখেছেন আপনার সব গুলো অথবা সামনের পাটির দাঁতগুলো পড়ে যাচ্ছে অথবা গেছে। সাথে অনেক রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

উত্তর- অসহায়বোধ, নিরাপত্তাহীনতা থেকে মানুষ এ ধরণের স্বপ্ন দেখে। উদ্বিগ্ন পরিস্থিতিতে থাকলেও এই ধরণের স্বপ্ন দেখে মানুষ।

অনেক উপর থেকে পড়ে যাওয়া

হঠাৎ করে কোন পাহাড়ের চূড়া, সমুদ্রে অথবা সমতলে পরতে দেখা।

স্বপ্নগুলো খুব বাস্তব মনে হয়। সাথে সাথে ঘুম ভেঙ্গে যায়।

উত্তর- জীবনের স্বাধীনতা ও ক্ষমতা অপ্রাপ্তির অভাব অনুভব করলে এই ধরনের স্বপ্ন দেখতে পারেন।

প্রত্যাশার কোনো সমাপ্তি নেই, সুতরাং এই দুঃস্বপ্নেরও ইতি নেই হয়তোবা!

জীবনের কোনো বিষয়ের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললেও এমন স্বপ্ন ঘুরে ফিরে দেখতে পারেন।

মৃত দেহ ধেয়ে আসছে

স্বপ্নে হয়তো গত হয়েছে এমন কোন প্রিয় মানুষকে দেখছেন।

মৃত হিসেবে মাঝে মাঝে নিজেকেও দেখছেন। অনেকে দেখে তারা কি করে স্বপ্নে মারা গেলো।

মনে হয় মৃত্যুর অনুভূতি যেন পেয়ে গেলো স্বপ্নে।

ঘুম থেকে উঠে খুব খারাপ লাগে তখন। খারাপ লাগার রেশটা কাটতে অনেক সময় নেয়।

উত্তর- স্বপ্নে মৃতজনকে দেখা মানে আবেগের জগতে আপনার টানাপোড়েন চলছে।

আর নিজের মৃত্যু দেখার অর্থ আপনার মানসিক জগতে কোনো নেতিবাচক ঘটনার ঘনঘটা চলছে। মানসিক ভাবে আপনি কোন কারণে ভালো নেই।

জীবনটা আপনার গতিতে চলছে না। চরম মানসিক শান্তির অভাবে এমন স্বপ্ন আসতে পারে।

সাধারণত যাদের বয়স শেষ মুহূর্তে অথবা যাদের জীবন খুব সংকটাপন্ন সময়ে পৌঁছে গিয়েছে, মূলত তারাই এমন সব দুঃস্বপ্ন বেশি দেখে থাকেন।

তবে অনেক স্বপ্ন আছে যার কোন ব্যখ্যা নেই। কিছু কিছু জিনিস অমীমাংসিত থেকে যায়।

2 Replies to “স্বপ্ন মাঝে মাঝে অদ্ভুত ধাঁধায় ফেলে দেয় !”

  1. স্বপ্ন হল অন্য জগতের প্রতিছবি। আমরা বিভিন্ন সময় , বিভিন্ন জগতে অবস্থান করি। আমরা পৃথিবীতে আসার লক্ষ বছর আগেই সৃষ্টি হয়েছি। কোথায় ছিলাম? কি করেছি? সে জীবনই বা কেমন ছিল? সচেতন ভাবে সে জীবনের কথা আমাদের মনে নেই। কিন্ত,অবচেতন মনে সব জগতের সব তথ্যই সুরক্ষিত ভাবে জমা আছে। লক্ষ্য করলে বুজতে পারবেন, স্বপ্নে যা দেখছেন তা সবই আমাদের এই পরিচিত জগতের নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *