বিউটি প্যাক: গরমে আপনার ত্বকে এনে দিবে স্বস্তি

বিউটি

এই গরমে ত্বক নিয়ে আমরা অনেক ঝামেলায় পরে যাই। রোদে ঘুরাঘুরি করার জন্য তৈরি হয় কাল দাগ, তৈলাক্ত ত্বক হলে তো আর কথাই নেই। তাই এই গরমে ত্বকের জন্য চাই কিছু যত্ন। বাসায় তৈরি করে ফেলুন কিছু বিউটি ফেস প্যাক। অতিরিক্ত কাজের চাপ, নানা রকমের চিন্তা ভাবনা, মানসিক চাপ এবং রাতে ঠিকমতো ঘুম না হওয়া এগুলো আমাদের শরীরের সাথে সাথে আমাদের ত্বকের ওপর প্রভাব ফেলে।

চন্দগুঁড়ার ফেস স্ক্রাব

চন্দগুঁড়া, স্যাফরন ও গোলাপজল একসঙ্গে মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরি করে নিন। মুখ পানি দিয়ে ধুয়ে এই প্যাক মুখে লাগিয়ে আলতো করে ম্যাসাজ করুন।

এরপর ১০ মিনিট রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভালো করে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

এতে মুখের দাগ-ছোপ, সানট্যান দূর করে ত্বক করে তুলবে ঝকঝকে।

হলুদের ফেস স্ক্রাব

১ টেবিল চামচ চলের গুঁড়া, এক টেবিল চামচ ময়দা, আধা টেবিল চামচ হলুদের গুঁড়া এবং পরিমাণ মতো ঠাণ্ডা দুধ মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন।

প্যাকটি মুখে ও গলায় দিয়ে ম্যাসাজ করুন।

২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক ত্বক পরিষ্কার করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়।

আমন্ড ফেস স্ক্রাব

৪-৫টা বাদাম সারা রাত ভিজিয়ে রেখে সেটা ভালো করে পেস্ট করে নিন। এই পেস্টে দুধ মিশিয়ে আঙ্গুলের ডগা দিয়ে মুখ এবং গলা ভালো করে ম্যাসাজ করুন। কিছুক্ষণ পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এটা ত্বকের পুষ্টি জোগায় এবং ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে।

পেঁপের ফেস স্ক্রাব

কয়েক টুকরা পাকা পেঁপের সঙ্গে সামান্য চিনি মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নিন। এরপর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে প্যাকটি মুখে ও গলায় মেখে নিন।

১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ভালো করে মুখ ধুয়ে নিন। প্যাকটি ত্বক ময়েশ্চারাইজ করে ত্বককে করে তুলতুলে। মুখে বয়সের ছাপ জনিত রেখা, রোদের ট্যান ও উজ্জল ত্বকের জন্য ফেসিয়াল করার সময় আলুর ফেস প্যাক ব্যবহার করা যেতে পারে। আলু ভিটামিন সি, ভিটামিন এ ও ভিটামিন বি এছাড়া পটাসিয়াম, আয়রন ও প্রোটিন এ পরিপূর্ণ। তাই এটি আমাদের ত্বকের জন্য অত্যন্ত কার্যকরী।

একটি মাঝারি মাপের আলুকে বেটে পেস্টের মত করে নিন।

এবার তার সাথে ১/২ কাপ টক দই মিশিয়ে আলুর ফেস প্যাকটি বানিয়ে নিন।

বিউটি ফেস প্যাক- ডিম

এই ফেস প্যাকটি ব্যবহার করার কিছুদিনের মধ্যেই আপনি সুফল পেয়ে যাবেন।

১ টি ডিমের সাদা অংশ, ১ চা চামচ ব্যাসন ও ৩-৪ ফোটা লেবুর রস ভালো করে একসাথে মিশিয়ে নিন।

ডিমের সাদা অংশ আমাদের ত্বকের মাংশ পেশীকে টানটান করে ফলত মুখের চামড়া টানটান থাকে।

শসার ফেস প্যাক  

শসা আমাদের ত্বকের জন্য অত্যন্ত ভালো ফেসিয়াল করা ছাড়াও এই ফেস প্যাকটি প্রতিদিন ব্যবহার করা যেতে পারে।

এটি আমাদের ত্বক ঠান্ডা রাখে এবং নমনীয়তা প্রদান করে ফলত ত্বকের রুক্ষতা দূর হয়। শসা ভালো করে ধুয়ে কেটে কষ ফেলে দিতে হবে।

এবার মিক্সিতে ভালো করে বেটে পেস্ট মত তৈরী করে তার সাথে ১-২ চামচ এলোভেরা জেল মিশিয়ে নিতে হবে।

বিউটি প্যাক- গোলাপের পাপড়ি, চন্দন ও দুধ

১০–১৫ টি তাজা গোলাপের পাপড়ি, ২-৩ চামচ চন্দন পাউডার, ২-৩ বড় চামচ জল একসাথে বেটে নিতে হবে।

এটি আমাদের ত্বকের জেল্লা বাড়িয়ে তুলতে এবং স্কিন টোন হালকা করতে অত্যন্ত কার্যকরী।

এই ফেস প্যাকটি সপ্তাহে ২-৩ প্রয়োগ করা যেতে পারে।

দারুচিনি শুধু রান্নায় নয় ত্বকের যত্নেও ব্যবহার করুন

দারুচিনি

দারুচিনি এশিয়া মহাদেশের একটি অনন্য সুগন্ধি মশলা। যা খাবারে দেয় আলাদা এক স্বাদ। এতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, ম্যাঙ্গানিজ, ক্যালসিয়াম ও আয়রন থাকে। প্রাচীন যুগে আয়ুর্বেদিক ও চীনা ওষুধ তৈরিতে এটি ব্যবহার করা হতো।

আমরা অনেকেই হয়তো জানি দারুচিনি মশলা এবং ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। কিন্তু অনেকে হয়তো এটা জানেন না ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে এটি কি পরিমাণ সাহায্য করে।

আপনাদের আজ জানিয়ে দেব আপনার ত্বকের কোন সমস্যায় কিভাবে ব্যবহার করবেন।

দারুচিনি ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে

দারুচিনি মুখ ও শরীরের বিভিন্ন অংশের ব্রণ ও মেছতা দূর করতে সাহায্য করে। মেছতা আর ব্রণ নিয়ে অনেকেই বিব্রত বোধ করেন। অনেক কিছু চেষ্টা করেও এর থেকে পরিত্রাণ পাচ্ছেন না।

এর জন্য যা যা করতে হবে তা হলো, তিন টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে এক টেবিল চামচ দারুচিনি গুঁড়া ভালো করে মেশান।

মিশ্রণটি আপনার ব্রণ আক্রান্ত অংশে লাগিয়ে সারা রাত রেখে দিন। আবার ২০ মিনিটের জন্য রেখে পানি দিয়ে ধুয়েও নিতে পারেন।

নিয়মিত ব্যবহার করুন অবশ্যই ফল পাবেন। প্রাকৃতিক উপাদান তাই কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

দারুচিনি মৃত কোষ দূর করতে পারে

মৃত কোষ দূর করতে সাহায্য করে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা ও মসৃণতা ফিরিয়ে আনে। ত্বক খুব মসৃণ রাখে।

এই স্ক্রাব তৈরি করতে যা যা লাগবে:

লবণ, বাদামের তেল, অলিভ অয়েল, মধু ও দারুচিনি একসঙ্গে মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করে নিন।

মুখে লাগিয়ে পাঁচ মিনিট হালকাভাবে ম্যাসাজ করুন।

এখন পাঁচ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ত্বক উজ্জ্বল করতে

দারুচিনিতে আছে অ্যান্টিফাঙ্গাল ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল নামক দুটি উপাদান, যা ত্বককে উজ্জ্বল ও ফর্সা করতে সাহায্য করে।

এই প্যাক তৈরি করতে যা যা লাগবে: একটি পাত্রে ছোট একটি কলা থেঁতলে নিন। সঙ্গে মেশান টক দই, দারুচিনি গুঁড়া ও লেবুর রস।

এবার মিশ্রণটি পরিষ্কার মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। তারপর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

বলিরেখা দূর করতে

ত্বকের স্বাভাবিক রক্ত এবং অক্সিজেনের প্রবাহ বজায় রাখে।

কয়েক ফোঁটা দারুচিনির তেলের সঙ্গে পেট্রোলিয়াম জেলি মিশিয়ে মুখে লাগান।

মুখে যা-ই লাগান না কেন, অবশ্যই চোখে যেন প্রবেশ না করে খেয়াল রাখবেন। এখন হালকা ম্যাসাজ করুন। এবার ধুয়ে ফেলুন।

রুক্ষ পায়ের যত্নে

পায়ের রুক্ষ ও শুষ্ক ত্বককে মসৃণ করতে সাহায্য করে। পায়ের মৃত চামড়া গুলো খুব সহজে উঠে যায়।

পায়ের যত্নে যা যা লাগবে:

পাঁচটি লেবুর রস, এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, এক কাপ দুধ, আধা কাপ পানি ও দুই টেবিল চামচ দারুচিনি গুঁড়া মিশিয়ে সেই মিশ্রণে পা দুটি ১৫ মিনিটের জন্য ডুবিয়ে রাখুন।

এটি আপনার পা নরম ও মসৃণ করতে বেশ সাহায্য করবে।

দারুচিনির আরও কিছু উপকারিতা

নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ দূর করতে

এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে ১ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া মিশিয়ে গার্গল করুন। দিনভর থাকবে সজীব নিঃশ্বাস।

পায়ের যত্নে

১ কাপ কুসুম গরম পানিতে ৫ ফোঁটা লেবুর রস ও ৫ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল মেশান। ১ চা চামচ মধু ও ১ টেবিল চামচ দারুচিনি গুঁড়া দিয়ে পা ভিজিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট।

পা ধুয়ে ফেলার আগে স্ক্রাব করে নিন শক্ত ব্রাশ দিয়ে। অবশ্যই পা ধোয়ার পর মশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন।

চুলের যত্নে

২ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল গরম করে নিন। কিছুটা ঠাণ্ডা হওয়ার পর ১ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া এবং ১০ ফোঁটা আমন্ড তেল মেশান।

কুসুম গরম থাকা অবস্থায় তেল ম্যাসাজ করুন মাথার ত্বকে। ১৫ মিনিট পর মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চুল হবে ঝলমলে।